আন্তর্জাতিক

তুরস্কে বিয়েতে আত্মঘাতী হামলাকারীরা ‘১২-১৪ বছরের শিশু’

তুরস্কের গাজিয়ানতেপে বিয়ের অনুষ্ঠানে যারা আত্মঘাতী হামলা চালিয়েছে, তাদের বয়স মাত্র ১২ থেকে ১৪ বছরের মধ্যে।

তুরস্কের প্রেসিডেন্ট রিসেপ তাইয়েপ এরদোয়ান এ কথা বলেছেন। শনিবার রাতের এ হামলায় নিহতের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৫১ জনে।

বিবিসি অনলাইনের এক খবরে রোববার এ তথ্য জানানো হয়েছে।

প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান এ হামলার জন্য জঙ্গিগোষ্ঠী ইসলামিক স্টেটকে (আইএস) দায়ী করেছেন।

এদিকে কুর্দিদের এ বিয়ের অনুষ্ঠানে অতর্কিতে হামলায় অর্ধশতাধিক মানুষ নিহত হওয়ায় মেহেদি উৎসব মুহূর্তে রক্তের হলিতে পরিণত হয়। বিয়ের উচ্ছ্বাস স্বজন হারানোর আর্তনাদে ঢাকা পড়ে। সাজানো বিয়ের অনুষ্ঠান থেকে পথ গিয়ে ঠেকে কবরস্থানে।

সিরিয়ার সীমান্তবর্তী তুরস্কের গাজিয়ানতেপ জেলায় বিভিন্ন সম্প্রদায়ের লোক বাস করে। কুর্দিদের পাশাপাশি এখানে আইএসের কয়েকটি টিম রয়েছে বলে বিশ্বাস করা হয়।

প্রেসিডেন্ট এরদোয়ান জানিয়েছেন, আত্মঘাতী এ হামলায় আহত হয়েছে ৬৯ জন। তাদের মধ্যে ১৭ জনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

বরযাত্রীরা বিয়ের অনুষ্ঠানে রাস্তায় আনন্দ করছিল। তারা নেচে-গেয়ে উৎসব উদযাপনে ব্যস্থ ছিল। ঠিক সেসময় তাদের ওপর আত্মঘাতী বোমা হামলা হয়।

মে মাসে গাজিয়ানতেপে আইএসের হামলায় তুর্কি পুলিশের দুই সদস্য নিহত হন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *